একটি দেশকে উন্নত করতে পরিকল্পনা লাগে। সেই পরিকল্পনা হতে হয় শিক্ষা কেন্দ্রিক কারণ কেবল শিক্ষাই পারে অনেককে এক সাথে একটি কাঠামো দিতে যার মাধ্যমে মানুষ তার সুপ্ত প্রতিভার উম্মেষ ঘটাতে পারে। মান সম্মত প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাই পারে একটা দেশকে বদলে দিতে। যেইসব দেশ উন্নত হয়েছে তাদের উন্নয়নের ছকটা কি? এইসব ছক কিন্তু ক্লাসিফাইড ডকুমেন্ট না। এইসব দৃশ্যমান এবং প্রমাণিত।

শিক্ষার উন্নতির সবচেয়ে বড় কারিগর শিক্ষক। এই শিক্ষক তৈরির সবচেয়ে বড় কারখানা হতে পারে কিছু ইনস্টিটিউট। পৃথিবীর যেইসব দেশ উন্নত সেইসব দেশে কিছু অ্যাডভান্সড রিসার্চ ইনস্টিটিউট আছে যেখানে আন্তর্জাতিক মানের দেশ বিদেশের খ্যাতিমান গবেষকরা গবেষণা করে।

ভারতে আছে যেমন IISc, Tata institute for fundamental research (TIFR), Jawaharlal Nehru Centre for Advanced Scientific Research (JNCASR)! এইরকম ইনস্টিটিউট কোরিয়াতে, চিনে, জাপানে, আমেরিকাতে ভুরি ভুরি। এখান থেকেই শক্তিশালী পিএইচডি প্রোগ্রামের মাধ্যমে জ্ঞান সৃষ্টি হয়। সেই সৃষ্টির মাধ্যমে গবেষক তৈরি হয়। এই ইনস্টিটিউটগুলো হবে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক supplier!

আমেরিকাতে কিছু ন্যাশনাল ল্যাব আছে যেমন Los Alamos National Laboratory, Brookhaven National Laboratory, Lawrence Berkeley National Laboratory ইত্যাদি। সেখানে বিপুল ফান্ডিং-এ অসংখ্য গবেষক অনেক বড় বড় গবেষণা করছে।

আমাদের যেসমস্ত বিজ্ঞান গবেষণাগার আছে সেখানকার ৭০ থেকে ৮০% এমনকি আরো বেশি হতে পারে যাদের পিএইচডি নেই। আর পোস্ট-ডক্টরাল অভিজ্ঞতার কথা নাই বললাম। তাই দ্রুত আন্তর্জাতিক মানের অ্যাডভান্সড রিসার্চ ইনস্টিটিউট করা অত্যন্ত জরুরি।

এর কোন বিকল্প নেই। প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ, বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ ইত্যাদি ফেলোশিপ দিয়ে একেকজনকে কোটি কোটি টাকা দিয়ে দেশের বাহিরে পিএইচডি না করিয়ে দেশের মধ্যে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালুর উদ্যোগ নিন।

লেখকঃ কামরুল হাসান মামুন
অধ্যাপক
ঢাবি